Breaking News

থাইল্যান্ড হোক আপনার সেকেন্ড হোম!!!





  • সেকেন্ড হোম আইডিয়াটা আজকাল অত্যন্ত জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে সারা পৃথিবী জুড়ে। উন্নত যোগাযোগ ও যাতায়াত ব্যবস্থার কারণে অনেকেই ভাবছেন নিজের দেশের বাইরে আরও কোথাও একটা বাড়ি থাকলে মন্দ হয় না। সেই ধারণা নিয়েই গত এক দশক ধরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বিভিন্ন রকম প্রকল্প হাতে নিয়েছে। সেরকম একটি প্রকল্পের আওতায় আপনি পেতে পারেন থাইল্যান্ডের বিশ বছরের জন্য বিশেষ আবাসন ভিসা।

    হয়ত এরকম একটা বাড়িতেই থাকবেন আপনি! ছবি: সংগৃহীত।

    এই বিশেষ আবাসন ভিসাটি দিচ্ছে থাইল্যান্ড প্রিভিলেজড কার্ড কোম্পানি লিমিটেড, এই প্রতিষ্ঠানটি ট্যুরিজম অথরিটি অব থাইল্যান্ড এর নিজস্ব কনসার্ন। তারা সাতটি বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে, যার প্রাথমিক হিসেবটুকু হচ্ছে, প্রতি বছর ৩০০০ ডলার খরচ করে আপনি থাইল্যান্ডে পেতে পারেন বিশেষ আবাসন ভিসা, যেটাকে থাইল্যান্ড কর্তৃপক্ষ বলছে এলিট রেসিডেন্সি।

    থাই সরকার চাইছে, সারা বিশ্ব থেকে ধনী মানুষেরা এসে যেন তাদের দেশে আবাস করে। এতে করে দেশে বৈদেশিক মুদ্রা আসবে প্রচুর পরিমাণে ও একই সাথে তাদেরকে উৎসাহিত করা হবে থাইল্যান্ডের বিভিন্ন ব্যবসা-বাণিজ্যে বিনিয়োগ করার জন্যও। এই সব বিশেষ আবাসন ভিসার মানুষদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে থাকবে নানা রকম সুবিধা যেগুলো সাধারণ ভিসার মানুষ কিংবা পর্যটকরা পান না। তারা বিভিন্ন সরকারি সংস্থা যেমন ইমিগ্রেশন, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ওয়ার্ক পারমিট থেকে শুরু করে নানা রকম জায়গায় বিশেষ সুবিধা পাবেন।

    সবুজ পানির দ্বীপ আর নীল আকাশের দ্বীপ। এই হল থাইল্যান্ডের রূপ। ছবি: সংগৃহীত।

    থাই সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া আরও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার মধ্যে রয়েছে বাৎসরিক ফ্রি মেডিকেল চেকআপ, এক বছরে ২৪টা স্পা ট্রিটমেন্ট ও বছরে একটি গলফ ট্রিপ আর ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে পাওয়া যাবে ফ্রি এয়ারপোর্ট ট্রান্সফার।

    যে সাতটা প্যাকেজ রয়েছে, তার মাঝে সবচেয়ে আকর্ষণীয় তিনটি প্যাকেজ এরকম:

    বিশ বছর মেয়াদী: বিশ বছর মেয়াদী এলিট রেসিডেন্সি ভিসার জন্য খরচ করতে হবে এককালীন ৬০,০০০ ডলার এবং প্রতি বছর ৬০০ ডলার মেম্বারশিপ ফী।

    দশ বছর মেয়াদী: দশ বছর মেয়াদী এলিট রেসিডেন্সি ভিসার জন্য খরচ করতে হবে এককালীন ৩০,০০০ ডলার। এখানে প্রতি বছরের জন্য কোন বিশেষ ফী নেই। রয়েছে পরিবারের অন্যদের জন্যও বিশেষ সুবিধাজনক ডিসকাউন্ট।

    পাঁচ বছর মেয়াদী: পাঁচ বছর মেয়াদী এলিট রেসিডেন্সি ভিসার জন্য খরচ করতে হবে এককালীন ৩০,০০০ ডলার। এখানেও প্রতি বছরের জন্য কোন বিশেষ ফী নেই।

    থাইল্যান্ড ট্যুরিজম কর্তৃপক্ষ আশা করছে এভাবে সারা পৃথিবী থেকে ধনী ও অবসরে চলে যাওয়া মানুষেরা থাইল্যান্ডে এসে আবাসনের প্রতি আগ্রহী হবেন। তারা আশা করছেন বছরে অন্তত ১০০০ মানুষ এর জন্য আবেদন করবেন।