Breaking News

কাল ইংল্যান্ডকে হারাব, এটা বলতে পারি না: মাশরাফি





  • আর মাত্র কয়েক ঘন্টা। এরপরই বেজে উঠবে যুদ্ধের ঝনঝনানি। শুরু হয়ে যাবে ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের সেরা আট দলের অংশগ্রহণের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির লড়াই। যেখানে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে উদ্বোধনী ম্যাচেই মুখোমুখি হতে হবে বাংলাদেশকে।

    আসল লড়াইয়ে নামার আগে মিলেছে যন্ত্রণা। শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে মঙ্গলবার ভারতের বিপক্ষে ৮৪ রানে অলআউট হওয়া বাংলাদেশকে মেনে নিতে হয়েছে ২৪০ রানের বিশাল হার। স্বভাবতই অনেক চাপ নিয়ে বৃহস্পতিবার মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশকে।

    কিন্তু বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজেদের ওপর চাপ না নিয়ে, চাপিয়ে দিচ্ছেন স্বাগতিকদের ওপর। লন্ডনের কেনিংটন ওভালে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হওয়ার আগের দিন মাশরাফি বললেন, ‘অনেক চাপ থাকবে। তবে মনেহয় কাটিয়ে উঠতে পারব। যদি ইংল্যান্ডের দিকে তাকান, দেখবেন তারা আমাদের চেয়ে বেশি চাপে থাকবে। তারা শিরোপা জিততে চায়। কারণ টুর্নামেন্টটি তাদের ঘরের মাঠে হচ্ছে।’

    তাই বলে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে শুরু করবেন, এমন বলছেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক। যে কোনো দলকে হারানোর সামর্থ্য থাকলেও মাশরাফির দর্শন অন্যরকম। তিনি বলছেন, ‘কাল হারিয়ে দিচ্ছি, এভাবে আপনি বলতে পারেন না। আমি বলতে পারি না কাল ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিবো। তবে নিজেদের দিনে আমরা যে কোনো দলকে হারাতে পারি। আমাদের ভাল শুরু করতে হবে। ভাল শুরু করতে পারলে সব সহজ হয়ে যায়।’

    সব চাপ প্রতিপক্ষকে দিলেও ইংল্যান্ডকেই ফেবারিট মানছেন মাশরাফি। শেষ দুই বছর ইংল্যান্ড যেভাবে খেলছে তাতে ইংল্যান্ডের গায়ে ফেবারিট তকমা থাকাটাই স্বাভাবিক বলে মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘শেষ দুই বছর তারা যেভাবে খেলেছে, সবাই তাদেরকেই ফেবারিট বলবে। তবে প্রতি ম্যাচে আপনি ফেবারিটের মতো খেলতে পারবেন না। মাঝেমধ্যে হারতেও হয়। তবে এই মুহূর্তে তারা সত্যিই ফেবারিট।’

    মাশরাফির দৃষ্টিতে সব বিভাগেই শক্তিশালী এই ইংল্যান্ড। প্রতিপক্ষের সামর্থ্য এভাবে ব্যাখ্যা করলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘সব বিভাগেই তারা ভাল। তাদের ভাল ব্যাটিং ও বোলিং বিভাগ আছে। যে কারণে সবাই তাদেরকে সেরা মানছে, বিশেষ করে এই টুর্নামেন্টে। তাদের মাঠেই খেলা হচ্ছে। তারা আর সবার চেয়ে এটা ভাল করে জানে কোন মাঠে কতো রান চেস করতে হবে।’

    ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের সুখস্মৃতি আছে বাংলাদেশের। গত বছর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে একটি ম্যাচ জেতে বাংলাদেশ। এছাড়া ২০১১ এবং ২০১৫- দুটি বিশ্বকাপেই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশ। যদিও অতীত নিয়ে পড়ে থাকছেন না মাশরাফি, ‘ওটা অনেক আগের কথা। ইংল্যান্ড এখন একবারেই আলাদা দল। শেষ দুই বছর তারা প্রায় সব ম্যাচই জিতেছে। এছাড়া ঘরের মাঠে তারা আরও বেশি ভয়ঙ্কর।’

    মূল লড়াইয়ের আগে ভারতের বিপক্ষে অমন ব্যাটিং নিয়ে শঙ্কায় অনেকেই। প্রস্তুতি ম্যাচ হলেও ৮৪ রানে ইনিংস শেষ হওয়াটাকে অবশ্যই ইতিবাচকভাবে দেখার সুযোগ নেই। যদিও প্রস্তুতি ম্যাচের হারটাকে বড় করে দেখছেন না মাশরাফি। প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহেও পাত্তা দিচ্ছেন না ওই ম্যাচটাকে।

    আসল লড়াইয়ে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ- সাধারণ ক্রিকেট ভক্তদের মতো এমন বিশ্বাস নিয়েই বৃহস্পতিবার ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে মাশরাফিবাহিনী।